কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক বার্তা প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

কুরআনে শব্দ খোঁজার জন্য ব্যবহার করুন “জিকর” নামে অসাধরণ সফটওয়্যার।

রহমান ও রহীম আল্লাহ্‌ তায়ালার নামে-  কুরআনে কোন কথাটি রয়েছে, কোনটি নেই, কোন আয়াত কত নং সূরার, তা একজন কুরআন বিশ্লেষক মুমীনের জানা খুব জরুরী। আজ আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেব “জিকর” নামের একটি সফটওয়্যারের সাথে যেটি নিমিষেই জানিয়ে দেবে আপনার কাঙ্খিত শব্দটি। সফটওয়্যারটিতে বাংলায় সার্চ করার সুযোগ রয়েছে। টিউটোরিয়াল ১. প্রথমে এই লিংক থেকে ৭.৭ … Read more

Share This Post

কি কি করলে ওযু নষ্ট হয় না?

১। নারীদেহ্‌ স্পর্শ করলে ওযু ভাঙ্গে না। কারণ, মহানবী (সাঃ) রাত্রে নামায পড়তেন, আর মা আয়েশা (রাঃ) তাঁর সম্মুখে পা মেলে শুয়ে থাকতেন। যখন তিনি সিজদায় যেতেন, তখন তাঁর পায়ে স্পর্শ করে পা সরিয়ে নিতে বলতেন। এতে তিনি নিজের পা দু’টিকে গুটিয়ে নিতেন। (বুখারী ৫১৩, মুসলিম, সহীহ ৫১২নং) তিনি হযরত আয়েশা (রাঃ)কে চুম্বন দিতেন। তারপর … Read more

Share This Post

বাচ্চাদের কার্টুন দেখাচ্ছেন? সাবধান!

ডরিমন, সুপারম্যান,স্পাইডারম্যান, হিমু এই সবগুলোর মাঝে শিরক মিশ্রিত আছে। আপনি এবং আপনার সন্তানদেরকে এইসমস্ত মায়াবী শয়তানী ধোঁকা থেকে দূরে রাখুন!! প্রথমেই বলে নেই, যেই সমস্ত বাবা মায়েরা আদর করে ছোটো ছোটো ছেলে মেয়েদের হাতে নাচ, গান, কার্টুন, ভিডিও গেমস, গল্পের বই তুলে দিয়ে একেবারে জন্ম থেকেই তাদের সন্তানদের পথভ্রষ্ট হওয়া মোটামুটি নিশ্চিত করছেন, কেয়ামতের দিন তাদেরকে তাদের
প্রাণপ্রিয় সন্তানেরা কি প্রতিদান দেবে? “কাফেররা বলবে, হে আমাদের পালনকর্তা! যেসব জিন ও মানুষ আমাদেরকে পথভ্রষ্ট করেছিল, তাদেরকে দেখিয়ে দাও, আজকে আমরা তাদেরকে পদ দলিত করব, যাতে করে তারা যথেষ্ট অপমানিত হয়।” [সুরা ফুসসিলাত, আয়াত ২৯] সুতরাং, দেখা যাচ্ছে কোনো মানুষ বা জিন যদি
অন্য কারো পথভ্রষ্ট হওয়ার কারণ হয়, তাহলে কেয়ামতের দিন সে আল্লাহর কাছে দুয়া করবে, যার কারণে সে
জাহান্নামে যাবে তাকে তার পায়ের নিচে দেওয়ার জন্য যাতে করে সে অপমানিত হয়। অতএব, আমাদের মধ্যে
যারা বাবা মা, আমাদের খেয়াল রাখা উচিত এতো আদর-যত্ন করে যে সন্তানদের লালন-পালন করছি, ইসলাম বিমুখ করে গড়ে তোলার জন্য কেয়ামতের দিন যেনো তাদের পায়ের নিচে লাঞ্চিত হতে না হয়। লা হা’উলা ওয়ালা কুওয়্যাতা ইল্লা বিল্লাহ, ওয়াল্লাহু মুস্তাআ’ন। এবার আসি আলোচ্য বিষয়ে….

Read more

Share This Post

আধুনিক সমাজে হিজাবের নামে চেলছে অশ্লিলতা।

হিজাব ধর্মপ্রাণ মুসলিম নারীদের অহংকার এবং আভিজাত্যের প্রতীক। তাঁদের আব্রু আর সম্ভ্রমের এক অনন্য বহিঃপ্রকাশ। নিজে হিজাব না পরলেও যখন কোন সম্ভ্রান্ত মহিলাকে হিজাব পরতে দেখি, তাঁদের আদব-লিহাজ,কায়দা-কানুনে শ্রদ্ধায় আপনিতেই মাথা নুয়ে আসে। আধুনিক সমাজে হিজাবের নামে চেলছে অশ্লিলতা। তাঁরা বংশ পরম্পরায় তাঁদের ঐতিহ্যকে লালন এবং বহন করে আসছে। হিজাব মানেই সম্মান এবং শ্রদ্ধা। সত্যিকারের … Read more

Share This Post

শবে বরাত ও প্রাসংগিক কিছু কথা

রহমান ও রহীম আল্লাহ্‌ তায়ালার নামে- লেখক : ড. আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া পিএইচডি (ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, মদীনা), সহকারী অধ্যাপক ও চেয়ারম্যান- ফেকাহ্ বিভাগ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া  শবে বরাত (বারাত) আভিধানিক অর্থ অনুসন্ধান ‘শব’ ফারসি শব্দ। অর্থ রাত বা রজনী। বরাত শব্দটিও মূলে ফারসি। অর্থ ভাগ্য। দু’শব্দের একত্রে অর্থ হবে, ভাগ্য-রজনী। বরাত শব্দটি আরবি ভেবে অনেকেই ভুল … Read more

Share This Post

আমরা কীভাবে কথা বলব, কীভাবে বেড়াতে যাবো, কীভাবে বাচ্চাদেরকে বিছানা দিব

আমরা কীভাবে কথা বলব, কীভাবে বেড়াতে যাবো, কীভাবে বাচ্চাদেরকে বিছানা দিবো — দৈনন্দিন জীবনে কাজে লাগে এমন সব খুঁটিনাটি সাধারণ ব্যাপারগুলো স্বয়ং আল্লাহ আমাদেরকে শিখিয়েছেন—

যে কোন মানুষের সাথে কথা বলার সময় ভদ্র, মার্জিত ভাবে কথা বলবে – ২:৮৩।
কোনো ভণিতা না করে, ধোঁকা না দিয়ে, যা বলতে চাও পরিস্কার করে বলবে – ৩৩:৭০।
চিৎকার করবে না, কর্কশ ভাবে কথা বলবে না, নম্র ভাবে কথা বলবে – ৩১:১৯।
মনের মধ্যে যা আছে সেটাই মুখে বলবে– ৩:১৬৭।
ফালতু কথা বলবে না এবং অন্যের ফালতু কথা শুনবে না। যারা ফালতু কথা বলে, অপ্রয়োজনীয় কাজ করে সময় নষ্ট করে তাদের কাছ থেকে সরে যাবে – ২৩:৩, ২৮:৫৫।
কাউকে নিয়ে উপহাস করবে না, টিটকারি দিবে না, ব্যঙ্গ করবে না – ৪৯:১০।
অন্যকে নিয়ে খারাপ কথা বলবে না, কারো মানহানি করবে না – ৪৯:১০।

Read more

Share This Post

ধূমপান করা কী হারাম না হালাল? আসুন জেনে নেই!

উত্তর: ডা. জাকির নায়েক: ধূমপানের কথা যদি বলতে হয়,অনেক বছর আগে যখন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উন্নত হয়নি বেশির ভাগ বিশেষজ্ঞ সে সময় বলতেন যে ধূমপান মাকরূহ। একটা হাদীসের উপর ভিত্তি করে বলা যেটা আছে সহীহ বুখারীতে (খণ্ড নং–১,অধ্যায়–আযান,হাদীস নং–৮৫৫)

নবীজী (ﷺ) বলেছেন,“কখনোও কেউ যদি কাঁচা রসুন বা পেঁয়াজ খায় সে আমার কাছ থেকে,মসজিদ থেকে দূরে থাকবে।”

Read more

Share This Post

হাদীছের গল্প

আয়েশা (রাঃ)-এর প্রতি অপবাদের ঘটনা:-

কপটতা মানব মনের এক দুষ্টু ক্ষত। এর ফলে সমাজে অশান্তি সৃষ্টি হয়। কখনো এর ফলে নিরপরাধ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মুনাফিক্ব সরদার আব্দুল্লাহ ইবনু উবাই ইবনে সুলূলের মুনাফিক্বীর শিকার হয়েছিলেন নবীপত্নী নিষ্কলুষ চরিত্রের অধিকারিণী মা আয়েশা (রাঃ)। যে কারণে স্বয়ং রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এক বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন। অবশেষে আল্লাহ তা‘আলা অহি-র মাধ্যমে আয়েশা (রাঃ)-এর পবিত্রতার কথা ঘোষণা করেন। আয়েশা (রাঃ)-এর প্রতি আরোপিত অপবাদ সম্পর্কেই আলোচ্য হাদীছ।-

Read more

Share This Post

কি করে বুঝবেন লোকটি যাদুকর কিনা?

আজকাল অনেক প্রতারক ও ভন্ড পীর-ফকির, মাযারের খাদেম, হুজুর মাওলানা বা এমন ধর্মীয় লেবাস পড়া লোক বেড়িয়েছে, যারা দাড়ি-টুপি নিয়ে, লম্বা জোব্বা ও পাগড়ি পড়ে জিনে ধরা রোগীর চিকিৎসা করা, হারানো ব্যক্তি বা বস্তু খুঁজে বের করে দেওয়া, যেকোন বিপদ-আপদ ও রোগের চিকিৎসা দেওয়া, দাম্পত্য কলহ ও নানা সমস্যার সমাধান করে দেবে, তদবীর করে প্রেম-ভালোবাসা ভেঙ্গে বা গড়ে দেবে, চাকুরী, ব্যবসা বা বিয়ে ঠিক করে দেবে, জিনের বাদশাহ, পাথর দিয়ে ভাগ্য পরিবর্তন করে. . .ইত্যাদি কথা বলে ধর্মের নামে ব্যবসা খুলে বসে আছে। এমনকি এরা পত্রিকাতে, টিভিতে বিজ্ঞাপন দিয়ে, মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে হাজার হাজার মানুষকে ধোঁকা দিচ্ছে। এদের অনেকে স্রেফ মিথ্যা কথা বলে মানুষের টাকা মেরে খাচ্ছে, আবার এদের মাঝে অনেকে আসলে যাদুকর, তন্ত্র-মন্ত্র ও জিনের কারসাজির মতো শিরকি-কুফুরী কথা ও কাজের সাথে জড়িত। সাধারণ মানুষ এদেরকে ‘আলেম’, ‘আল্লাহর ওয়ালী’, ‘কামেল ও বুজুর্গ’ লোক মনে করে সমস্যার সমাধান নিতে যাচ্ছে আর নিজের অজান্তে শিরকি ও কুফুরী কাজে লিপ্ত হয়ে ঈমান নষ্ট করছে।

Read more

Share This Post
Translate In English