আবু দাউদের ৪৭২৮ নাম্বার হাদীস দ্বারা কী আল্লাহর জন্য কান এবং চোখ সিফাত সাবস্ত হয়

আল্লাহ সর্বশ্রোতা ও সর্বদ্রষ্টা (সূরা নিসাঃ ৫৮) আবূ হুরাইরা (রা:) বলেন, আমি রাসূল (ﷺ)-কে তাঁর বৃদ্ধাঙ্গুলকে কানে এবং তরজনীকে দু’চোখের উপর রাখতে দেখেছি।(আবু দাউদ হা/৪৭২৮) এই হাদীস দ্বারা কী আল্লাহর জন্য কান এবং চোখ সিফাত সাবস্ত হয়? ▬▬▬▬▬▬▬💠💠💠▬▬▬▬▬▬▬ প্রথমত: আল্লাহর সিফাত সাব্যস্ত করার বিষয়ে আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামা‘আতের আক্বীদাহ হল আল্লাহ তা‘আলাকে ঐ গুণে গুণান্বিত …

Read more

Share:

মহান আল্লাহ্‌ কোথায় আছেন এবং যারা বিশ্বাস করে আল্লাহ সর্বত্র বিরাজমান তাদের এই আক্বিদা কতটুকু সঠিক

প্রশ্নঃ মহান আল্লাহ্‌ কোথায় আছেন? যারা বিশ্বাস করে আল্লাহ সর্বত্র বিরাজমান তাদের এই আক্বিদা কতটুকু সঠিক দলিল সহ জানতে চাই। ▬▬▬▬▬▬▬▬▬❂▬▬▬▬▬▬▬▬ উত্তর: মহান আল্লাহ্‌ আছেন সাত আসমানের উর্ধে আরশের উপর।তিনি স্রষ্টা, সৃষ্টি থেকে উর্ধে থাকেন। তবুও তিনি বান্দার নিকটবর্তী। তার জ্ঞান ও দৃষ্টি সর্বত্র আছে। মুমিনের হৃদয়ে তার যিকর বা স্মরণ থাকে।কিন্তু তিনি আছেন সাত …

Read more

Share:

ব্যক্তি বা আলেমদের মানহাজ দেখে ইলম গ্রহণ করুন শুধুমাত্র আক্বীদা দেখে নয়

ব্যক্তি/আলেমদের মানহাজ দেখে ইলম গ্রহণ করুন; শুধুমাত্র আক্বীদা দেখে নয়। কারণ, অনেকের আক্বীদা সহীহ হলেও মানহাজ সহীহ নয়। কিন্তু যার মানহাজ সহীহ, আলহামদুলিল্লাহ দেখবেন তার আক্বীদাও সহীহ। ▬▬▬▬▬▬▬💠💠💠▬▬▬▬▬▬▬ প্রিয় পাঠক, আক্বীদা ও মানহাজ এই দুটি ইসলামী শরীয়তের অতীব গুরুত্বপূর্ণ পরিভাষা। একজন ব্যক্তির পরকালীন সফলতা অথবা ব্যর্থতা এই দুটি বিষয়ের বিশুদ্ধতা অথবা ভুলের উপর নির্ভরশীল। যে …

Read more

Share:

মহান আল্লাহর সিফাত বা গুনাবলি কত প্রকার ও কি কি

আল্লাহর সিফাত দুই প্রকার। যথা: (১). সত্তাগত সিফাত (২). কর্মগত সিফাত। (১). সত্তাসংলগ্ন গুণ হলো, যেগুলো অনাদি কাল থেকে আল্লাহর সত্তার সঙ্গে রয়েছে এবং অনন্তকাল ধরে থাকবে। যেমন ইলম, কুদরত, শ্রবণ, দর্শন, পরাক্রমশীলতা, হিকমত, সর্বোচ্চতা,‘আযমত। এর মধ্যে সংবাদজাত গুণ যেমন চেহারা, দু‘হাত, দু‘চোখ ইত্যাদিও শামিল রয়েছে। . (২). আর কর্মসংলগ্ন গুণ হলো ওইসব গুণ, যা …

Read more

Share:

মুসলিম কবিরা গুনাগাহর ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের বিশুদ্ধ আক্বীদা

প্রশ্ন: মুসলিম কবিরা গুনাগাহর ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের বিশুদ্ধ আক্বীদা কি? তারা কি চিরস্থায়ী জাহান্নামী হবে? ▬▬▬▬▬▬▬💠💠💠▬▬▬▬▬▬▬ উত্তর: আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের আক্বীদা হলো: সুদখোর, জিনাকারী,ব্যভিচারের অপবাদ-আরোপকারী, চুরিকারী, মিথ্যা সাক্ষ্য প্রদানকারী, পিতা-মাতার অবাধ্যতাকারী, অবৈধ ভাবে হত্যাকারী এবং অলসতা বসত মাঝে মধ্যে দুই এক ওয়াক্ত সালাত পরিত্যাগকারী ইত্যাদি এগুলো সবই কাবিরা গুনাহের অন্তর্ভুক্ত হবে; …

Read more

Share:

আমি এটি করব এবং বাকিটা আল্লাহর হাতে এই বক্তব্য কতটুকু শরীয়ত সম্মত

সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্য, রহমত ও শান্তি বর্ষিত হোক আল্লাহর রসূল এবং তাঁর পরিবারবর্গ ও সাহাবীগণের উপর। আমি এটা ওটা করবো বাকিটা আল্লাহর হাতে এই বাক্যটি ব্যবহারের দুটি উদেশ্য হতে পারে। যার একটি বৈধ অপরটি অবৈধ। যেমন: (১). আমি অমুক-অমুক-কাজ করব, বাকিটা আল্লাহর উপর নির্ভরশীল। এই বাক্যটি ব্যবহার করা সঠিক নয়। কারণ এক্ষেত্রে ব্যক্তি নিজের …

Read more

Share:

পবিত্র কুরআনুল কারীমকে আমরা যেমন আল্লাহর কালাম বলে বিশ্বাস করি অনুরূপভাবে হাদীসের ক্ষেত্রে আমাদের আক্বীদা কেমন হতে হবে

হাদীস (حَدِيْث) এর শাব্দিক অর্থ: নতুন, প্রাচীন ও পুরাতন এর বিপরীত বিষয়। এ অর্থে যে সব কথা, কাজ ও বস্ত্ত পূর্বে ছিল না, এখন অস্তিত্ব লাভ করেছে তাই হাদীস। এর আরেক অর্থ হল: কথা, বাণী, সংবাদ, বিষয়, অভিনব ব্যাপার ইত্যাদি। শারঈ পরিভাষায় নাবী কারীম (ﷺ) আল্লাহর রাসূল হিসেবে যা কিছু বলেছেন, যা কিছু করেছেন এবং …

Read more

Share:

ইলায়াসী তাবলীগ বনাম রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর তাবলীগ

(ক) তারা নিজেরা কুরআন বুঝে না অন্যদেরকেও বুঝতে দেয় না। কিন্তু রাসূল ﷺ নিজে কুরআন শিখিয়েছেন এবং তার প্রচারকও ছিলেন। (খ) তাদের দাওয়াতী নিয়ম স্বপ্নে প্রাপ্ত।(মালফূযাতে মাওলানা মুহাম্মাদ ইলিয়াস, পৃঃ ৫১ ) রাসূল ﷺ-এর দাওয়াতী নিয়ম স্বয়ং আল্লাহ প্রদত্ত (সূরা মায়েদা, ৫/ ৬৭)। (গ) তাদের দাওয়াতের মধ্যে সপ্তাহে ১ দিন, মাসে ৩ দিন, বছরে ১ …

Read more

Share:

আমরা ভাল-মন্দ করবো বলেই কি আল্লাহ তাকদীরে লিখে রেখেছেন

আমরা ভাল-মন্দ করবো বলেই কি আল্লাহ তাগদীরে লিখে রেখেছেন? নাকি আল্লাহ স্বীয় জ্ঞানে স্বাধীনভাবে তাকদ্বীর নির্ধারণ করেছেন। এই মাসয়ালার সঠিক আক্বীদা। ▬▬▬▬▬▬💠💠💠▬▬▬▬▬▬▬▬ ভূমিকা: আমরা ভাল-মন্দ করবো বলেই আল্লাহ লিখে রেখেছেন এই বাক্যের আরেকটি অর্থ হল আমরা দুনিয়াবী জীবনে কি করবো না করবো সেটা আল্লাহর কাছ থেকে চেয়ে নিয়েছি অর্থাৎ আমাদের চাওয়া অনুসারে আল্লাহ তাগদ্বীরে লিখেছেন …

Read more

Share:

পবিত্র কুরআনে তাওহীদ বিষয়ে নয়জন নবীর ভাষণ

(১) নবী নুহ আলাইহি সালাম:মহান আল্লাহ বলেন, “নিশ্চয় আমি নুহকে তার সম্প্রদায়ের প্রতি পাঠিয়েছি। সে বলল: হে আমার সম্প্রদায়, তোমরা আল্লাহর এবাদত কর। তিনি ব্যতীত তোমাদের কোন উপাস্য নেই। আমি তোমাদের জন্যে একটি মহাদিবসের শাস্তির আশঙ্কা করি। [সুরা আরাফ, ৭:৫৯]। জবাবে তার সম্প্রদায় বলল: মহান আল্লাহ বলেন,“তার সম্প্রদায়ের সর্দাররা বলল: আমরা তোমাকে প্রকাশ্য পথভ্রষ্টতার মাঝে …

Read more

Share: