কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক বার্তা প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

একাকী অথবা বৈঠক ও সভা-অনুষ্ঠানে বসার ২০টি আদব (শিষ্টাচার)

ইসলাম জীবনের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে অত্যন্ত চমৎকার ও সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদান করেছে। তারমধ্যে একটি দিক হল, একাকী অথবা বিভিন্ন মিটিং, সভা-সমাবেশ, অনুষ্ঠান অথবা বন্ধুদের সাথে বসা সংক্রান্ত আদব বা শিষ্টাচার। নিম্নে এ বিষয়ে কুরআন-হাদিসের আলোকে ২০টি শিষ্টাচার উল্লেখ করা হল।

১) উপযুক্ত স্থানে বসা। যেখানে বসলে মানুষের ক্ষতি হবে সেখানে না বসা। যেমন: রাস্তা, মানুষের ইবাদতের স্থান, আরামের স্থান ইত্যাদি।
২) কোন বৈঠক কিংবা সভা বা অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ করার সময় সালাম দেওয়া এবং বের হওয়ার সময় সালাম দেওয়া।
৩) বৈঠক বা অনুষ্ঠান স্থলে পরে গেলে মানুষ যেখানে বসা শেষ করেছে সেখানে চুপচাপ বসে পড়া। লোকজনের ঘাড় ডিঙ্গিয়ে বা মানুষকে কষ্ট দিয়ে সামনে যাওয়া উচিত নয়। অবশ্য বৈঠকের পক্ষ থেকে সামনে আসতে বলা হলে সে কথা ভিন্ন।
৪) এমন সতর্কভাবে বসা যেন লজ্জা স্থান কারো সামনে প্রকাশিত না হয়।
৫) কারো সাথে বসার প্রয়োজন হলে দেখেশুনে বসা। খারাপ মানুষ হলে তার সঙ্গ ত্যাগ করা এবং ভালো মানুষ হলে অবস্থান করা।
৬) কাউকে তার আসন থেকে উঠিয়ে সেখানে নিজে না বসা।
৭) কেউ আসন থেকে কোন কাজে উঠে গিয়ে থাকলে যদি পুনরায় ফিরে আসে তাহলে তার জন্য আসন ছেড়ে দেয়া। কারণ সেই এই আসনের অধিক হকদার।
৮) দুজন মানুষ পাশাপাশি বসে থাকলে সেখানে মাঝখানের ঢুকে দুজনের মাঝে বিচ্ছিন্নতা তৈরি না করা।
৯) বৈঠক বা অনুষ্ঠানে পাশের ব্যক্তি কে সর্বোচ্চ সম্মান দেখানো এবং তাকে কোনভাবেই কষ্ট না দেওয়া।
১০) একাকী অথবা লোকজনের সাথে বসলে দীন, আল্লাহর জিকির, ভালো ও উপকারী কথা বলা। কারো গিবত, সমালোচন, নিন্দাবাদ, গালাগালি, অশ্লীলতা এবং সব ধরণের আল্লাহর অসন্তোষমূলক কথাবার্তা থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকা।
১২) বৈঠকে এমন ভঙ্গিতে না বসা বা এমন কোনও আচরণ না করা যা অন্যের বিরক্তির কারণ হয়। যেমন: দুইজনের জায়গা একজনে দখল করে বসা, বৈঠকে বসে দাঁতের ময়লা বের করা, একটু পর পর কফ ও থুথু ফেলা, শরীরের ময়লা তোলা, বিব্রতকর আচার-আচরণ করা ইত্যাদি।
১৩) কোন সভা অনুষ্ঠানে এই জাতীয় বাজে কথাবার্তা হলে সম্ভব হলে বাধা দেয়া অথবা সেখান থেকে উঠে আসা।
১৪) বৈঠকে কোন গোপনীয় বিষয়ে আলোচনা হলে তা ফাঁস না করা। কেননা তা আমানতদারিতা এবং বিশ্বস্ততা পরিপন্থী কাজ।
১৫) বৈঠকে থাকলে অথবা সঙ্গীর সাথে থাকলে উপকারী কথা গুরুত্বের সাথে মনোযোগ দিয়ে শ্রবণ করা। এসময় অন্য মনস্ক থাকা বা অন্য কাজে ব্যস্ত থাকা উচিত নয়। এটি ভদ্রতা পরিপন্থী কাজ।
১৬) কোথাও তিনজন ব্যক্তি একসাথে থাকলে একজনকে বাদ দিয়ে দুজন মিলে কোন কথা কানাঘুষা না করা। এতে তৃতীয় ব্যক্তি কষ্ট পায়।
১৭) বৈঠকে থাকার সময় পরে কোন ব্যক্তি আগমন করলে তাকে যথাসাধ্য বসার জায়গা করে দেওয়া।
১৮) বৈঠকে বসে না ঘুমানো।
১৯) বৈঠক ও সভা-সমাবেশে বক্তব্য চলার সময় হাসাহাসি, দুষ্টামি বা অন্যের মনোযোগ বিঘ্নিত হতে পারে এমন কোন কাজ থেকে বিরত থাকা।
২০) বৈঠক শেষ করার দোয়া পাঠ করা।
▬▬▬▬●●●▬▬▬▬
লেখক:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post
Translate In English